মে ২০২০ মাসের এমপিও শিট যেভাবে ডাউনলোড করবেন-

মে ২০২০ মাসের এমপিও শিট যেভাবে ডাউনলোড করবেন-

প্রথমে www.emis.gov.bd লিখে এন্টার দিন। 

তারপরে আসবে

MPO

MPO Sheet/Voucher ক্লিক করুন

তারপর আসবে  Mpo  Salary  May 2020 এ ক্লিক করুন

তারপর ব্যাংকের নাম দেখাবে রাজবাড়ী জেলার জন্য   Agrani  Bank  এ ক্লিক করুন

তারপর  আসবে  MPO  Sheet এ ক্লিক করুন

তারপর  আসবে  Dhaka  Zone এ ক্লিক করুন

তারপর  আসবে জেলার নাম আমার জেলা Rajbari  District  এ ক্লিক করুন

তারপর  আসবে থানার  নাম আমার থানা  Pangsha. PDF  এ ক্লিক করুন

তারপর  আসবে   Pangsha  থানার সকল প্রতিষ্টানের এমপিও সিট

আপনি আপনার প্রতিষ্ঠানের এমপিও সিট বাছাই করে  প্রিন্ট করে বের করবেন।

ধন্যবাদ

কোন সমস্যা হলে ০১৮৭৫-৮৫৬৯২৪ যোগাযোগ করুন। 

শিক্ষা বিষয়ক নতুন নতুন তথ্যের জন্য নিয়মিত www.teachersnews24.com  ভিজিট করুন। 

 




আপনি ঈদুল ফিতরের -২০২০ উৎসব ভাতার শীট কিভাবে ডাউনলোড ও প্রিন্ট দিবেন জেনে নিন

২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) শিক্ষক-কর্মচারীদের ঈদ-উল-ফিতর/২০২০ উৎসব ভাতার সরকারি অংশের টাকার চেক হস্তান্তর। 

বিস্তারিত জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন –

আপনি ঈদুল ফিতরের -২০২০ উৎসব ভাতার শীট কিভাবে ডাউনলোড ও প্রিন্ট দিবেন যেভাবে

প্রথমে আপনি ব্রাউজার  ওপেন করে এড্রেস বারে লিখুন  www.emis.gov.bd  এর পর ই এম আই এস  প্যানেল ওপেন হলে  লগ ইন এ ক্লিক করে আপনার  ইউজার নম্বর ও পার্স ওয়ার্ড  দিয়ে  OK করে আপনার এ্যাডমিন প্যানেল ওপেন করুন ।

এবারে এড্রেস বারে নতুন একটি ট্যাব ওপেন করে নিচের বোনাস সিটটি কপি করে নতুন খোলা ট্যাবে পেষ্ট করে এন্টার দিন তাহলে আপনার বোনাস সিটের প্যানেল চলে আসবে। এখন নিচের দিকে আপনার প্রতিষ্ঠানের নাম লেখা দেখতে পাচ্ছেন  এবং নামের আগে দুইটি বক্স আছে একটি বক্সে ক্লিক করলে দুইটি বক্স সিলেক্ট হয়ে যাবে। তারপর  Print  Bonus  Sheet অপশন দেখতে পাবেন এবং ওখানে ক্লিক করলে -২০২০ উৎসব ভাতার শীট ডাউনলোড হয়ে যাবে তারপর   প্রিন্ট দিবেন।

ঈদুল ফিতরের -২০২০ উৎসব ভাতার শীট  ডাউনলোড লিংক  emis.gov.bd/EMIS/MPO/Reports/BonusSheetGeneration

 

বেতন সিট ডাউনলোড লিংক : 

emis.gov.bd/EMIS/MPO/Reports/SalarySheetGeneration

 

বর্তমানে www.emis.gov.bd সাইটে  ঈদুল ফিতরের -২০২০ উৎসব ভাতা ও বেতন সিট ডাউনলোড করা যাচ্ছে না আমি এই প্রক্রিয়ায় ডাউনলোড করছি।  ভবিষৎতের জন্য লিংক দুইটি রেখে দিন। ধন্যবাদ। 




স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের মার্চের চেক ছাড়

বেসরকারি স্কুল ও কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের মার্চ (২০২০) মাসের এমপিওর চেক ছাড় হয়েছে। আজ রোববার ৫ এপ্রিল

বেতন-ভাতা তোলার শেষ দিন ১২ এপ্রিল।

 

প্রতিষ্ঠান প্রধানদের ওয়েবসাইট (emis.gov.bd) থেকে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের এমপিওর শীট ডাউনলোড করতে বলা হয়েছে।

 

  • সূত্র দৈনিক শিক্ষা



মার্চের এমপিওর চেক ছাড় মাদরাসা শিক্ষকদের

মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের মার্চ (২০২০) মাসের এমপিওর চেক ছাড় হয়েছে।

আদেশের স্মারক নম্বর ৫৭.২৫.০০০০.০০২.০৮.০০৪.১৯-১৬৫

চারটি ব্যাংকে চেক পাঠানো হয়েছে। শিক্ষকরা আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বেতন-ভাতার সরকারি অংশের টাকা তুলতে পারবেন।

বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন = মাদ্রাসা শিক্ষক-কর্মচারীদের মার্চ ২০২০ মাসের এমপিওর চেক ছাড় প্রসঙ্গে।




আগস্টের এম পি ওর চেক ছাড় স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের

আগস্টের এম পি ওর চেক ছাড় স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের

 

এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের আগস্ট (২০১৯) মাসের এমপিওর চেক  ছাড় হয়েছে।

  স্মারক নম্বর: ৩৭.০২.০০০০.১০২.৩৭.০০৪.২০১৯/৬৫১২/০৪।

৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নিজ নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বেতন-ভাতার সরকারি অংশ তুলতে পারবেন শিক্ষক-কর্মচারীরা।




স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের জুলাইয়ের এমপিওর চেক ছাড় (ঈদ বোনাসসহ )

স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের জুলাইয়ের এমপিওর চেক ছাড় (ঈদ বোনাসসহ )

 

বেতনের স্মারক নম্বর: ৩৭.০২.০০০০.১০২.৩৭.০০৪.২০১৯/৬২৪৬/০৪

বোনাসের স্মারক নম্বর: ৩৭.০২.০০০০.১০২.৩৭.০০৪.২০১৯/৬২৬৫/০৪

 

বেসরকারি স্কুল-কলেজের এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের জুলাই মাসের এমপিও ও ঈদুল আযহার উৎসব ভাতার চেক বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) ছাড় হয়েছে।

 

উল্লেখ্য , ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি যুক্ত করে শিক্ষকদের জুলাই মাসের বেতন ছাড় করা হয়েছে ।

 

৮ আগস্ট পর্যন্ত নিজ নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বেতন-ভাতার সরকারি অংশ তুলতে পারবেন।

 

 




মে মাসের এমপিওর চেক ছাড় মাদরাসা শিক্ষকদের

মে মাসের এমপিওর চেক ছাড় মাদরাসা শিক্ষকদের

স্মারক নম্বর ৫৭.২৫.০০০০.০০২.০৮.০০৪.১৯-২১৫

মে মাসের এমপিওর চেক ছাড় হয়েছে মাদরাসার শিক্ষক-কর্মচারীদের । বুধবার (২৯ মে) অনুদান বণ্টনকারী রাষ্ট্রায়াত্ত চারটি ব্যাংকে চেক পাঠানো হয়েছে। শিক্ষকরা আগামী ৩ জুন পর্যন্ত বেতন-ভাতার সরকারি অংশের টাকা তুলতে পারবেন।




মে মাসের এমপিওর চেক ব্যাংকে স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের

মে মাসের এমপিওর চেক ব্যাংকে স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের

এমপিওভুক্ত বেসরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষক ও কর্মচারীদের মে-মাসের মাসের এমপিওর চেক ছাড় হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) ব্যাংকে চেক পাঠানো হয়েছে। আগামী ৩ জুন পর্যন্ত বেতন-ভাতার টাকা তুলতে পারবেন।




এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের মার্চের বেতনের চেক ব্যাংকে

বেসরকারি স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদের মার্চ (২০১৯) মাসের এমপিওর বেতন-ভাতার চেক ব্যাংকে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) চারটি ব্যাংকের শাখায় পাঠানো হয়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে।

শিক্ষক-কর্মচারীরা ১০ এপ্রিল পর্যন্ত নিজ নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বেতন-ভাতার সরকারি অংশ উত্তোলন করতে পারবেন।

স্মারক নং-৩৭.০২.০০০০.১০২.৩৭.০০৩.২০১৮/২০২৮/০৪

নোটিশ:

http://www.educationbangla.com/media/PhotoGallery/2019March/7 00120190402121025.jpg

এডুকেশন বাংলা/




বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীদের ফেব্রুয়ারির বেতন-ভাতা ছাড়

বেসরকারি স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদের ফেব্রুয়ারি মাসের এমপিওর (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) অর্থ ছাড় দেয়া হয়েছে।

সোমবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের উপ-পরিচালক (সাধারণ প্রশাসন) শফিকুল ইসলাম সিদ্দিকি স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, দেশের সব স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীর এমপিওভুক্তির বেতন-ভাতার অর্থ নির্ধারিত ব্যাংকে আটটি চেকের মাধ্যমে জমা দেয়া হয়েছে। অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে এবং জনতা ও সোনালী ব্যাংকের স্থানীয় শাখায় এই অর্থ জমা দেয়া হয়েছে।

আগামী ১০ মার্চের মধ্যে শিক্ষক-কর্মচারীদের এই বেতন-ভাতার টাকা তুলতে পারবেন বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

তবে ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন থেকে শিক্ষক-কর্মচারীদের অবসর ও কল্যাণ ফান্ডের জন্য মোট ৬ শতাংশ টাকা চাঁদা হিসেবে কর্তন করা হয়েছে।

এডুকেশন বাংলা




১০ শতাংশ কর্তন করে কারিগরি শিক্ষকদের

অবসর সুবিধা বোর্ড ও কল্যাণ ট্রাস্টের ফান্ডের জন্য ১০ শতাংশ চাঁদা কর্তন করে কারিগরির শিক্ষকদের জানুয়ারি মাসের এমপিও চেক ছাড় হচ্ছে। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন সহকারী পরিচালক এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এতোদিন  অবসর সুবিধা বোর্ডের জন্য এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বেতন থেকে যথাক্রমের অবসরে ৪ শতাংশ ও কল্যাণে ২ শতাংশ হারে মোট ৬ শতাংশ চাঁদা কর্তন করা হতো। গত ১৪ জানুয়ারি কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের সচিব মো: মাহাবুবুর রহমান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের আদেশের প্রেক্ষিতে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও কর্মচারীর অবসর সুবিধা বোর্ড এবং কল্যাণ ট্রাস্টের ১০ শতাংশ চাঁদা ধার্য করা হয়েছে। এ আদেশ ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর করা হবে।

এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের সরকারি অনুদানের অংশ (এমপিও) থেকে প্রতিমাসে দুটি ফান্ডের জন্য এই ১০ শতাংশ টাকা কর্তন করে রাখা হবে।

দৈনিকশিক্ষা




৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধির চেক ব্যাংকে কারিগরি শিক্ষকদের

স্মারক নং- ৫৭.০৩.০০০০.০৯১.২০.০০৫.১৮-১১০৫/১১০৬/১১০৭/১১০৮।

৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধির চেক বুধাবর (৫ ডিসেম্বর) ছাড় হয়েছে। প্রবৃদ্ধির চার মাসের বকেয়াও দেয়া হয়েছে। কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন শিক্ষক-কর্মচারীদের

 

নিজ নিজ এ্যাকাউন্ট থেকে ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধির টাকা তুলতে পারবেন।




৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধিসহ স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের নভেম্বরের এমপিওর চেক ব্যাংকে

৫ শতাংশ বার্ষিক প্রবৃদ্ধিসহ স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদের নভেম্বর মাসের এমপিওর (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) চেক বুধবার ছাড় হয়েছে।

শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন পরিচালক এ খবর নিশ্চিত করেছেন। পাশাপাশি প্রবৃদ্ধির চার মাসের বকেয়াও দেয়া হয়েছে।

শিক্ষক-কর্মচারীরা ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নিজ নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বেতন-ভাতার সরকারি অংশ উত্তোলন করতে পারবেন।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতনের আটটি চেক নির্ধারিত অনুদান বণ্টনকারী চারটি ব্যাংকের শাখায় পাঠানো হয়েছে। স্মারক নং ৩৭.০২.০০০০.১০২.৩৭.০০৩.২০১৮/১০৬৫৬/৪




নভেম্বরের এমপিওতেই ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি পাচ্ছেন শিক্ষকেরা

আগামী ২৮ অথবা ২৯ নভেম্বর বেসরকারি স্কুল-কলেজ শিক্ষকদের নভেম্বর-২০১৮ মাসের অনুদানের চেক ব্যাংকে পাঠানো হতে পারে।

এমপিওভুক্ত স্কুল ও কলেজ শিক্ষক-কর্মচারীদের নভেম্বর মাসের বেতনের সঙ্গেই পাঁচ শতাংশ বার্ষিক প্রবৃদ্ধি যুক্ত করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের এমপিও কমিটি।

১৯ নভেম্বর, সোমবার শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালকের রুটিন দায়িত্বে থাকা কলেজ ও প্রশাসন শাখার পরিচালক অধ্যাপক মোহাম্মদ শামছুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত নভেম্বর মাসের এমপিও কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা অংশ নেন।

জানা যায়, ২৮ অথবা ২৯ নভেম্বর বেসরকারি স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদের নভেম্বর-২০১৮ মাসের অনুদানের চেক ব্যাংকে পাঠানো হতে পারে।

বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) মন্ত্রণালয় শিক্ষা অধিদফতরকে দেয়া এক চিঠিতে ২০১৮ খ্রিস্টাব্দের ১ জুলাই থেকে বার্ষিক পাঁচ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ও আগামী বৈশাখী থেকে বৈশাখী ভাতা দেয়ার আদেশ দেয়া হয়েছে।

প্রিয় সংবাদ




অক্টোবর মাসের এমপিও’র চেক ছাড়

বেসরকারি স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদের অক্টোবর মাসের এমপিও`র চেক ছাড় হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৫ অক্টোবর) স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতনের আটটি চেক নির্ধারিত চারটি ব্যাংকের শাখায় পাঠানো হয়েছে। স্মারক নং ৩৭.০২.০০০০.১০৭.৩৭.০০৩.২০১৮.৭৭২৭/৪

শিক্ষক-কর্মচারীরা ৭ নভেম্বর পর্যন্ত বেতন-ভাতার সরকারি অংশ উত্তোলন করতে পারবেন।




শিক্ষক-কর্মচারীদের সেপ্টেম্বর/২০১৮ মাসের বেতন -ভাতার সরকারি অংশের টাকার চেক হস্তান্তর

২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) শিক্ষক-কর্মচারীদের সেপ্টেম্বর/২০১৮ মাসের বেতন -ভাতার সরকারি অংশের টাকার চেক হস্তান্তর –

বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন –




৯০৯ জন শিক্ষক এমপিওভুক্ত হচ্ছেন

বিভিন্ন স্কুল ও কলেজে শূন্যপদে নিয়োগ পাওয়া ৯০৯ জন শিক্ষক-কর্মচারীকে এমপিওভুক্ত (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এর আগে ৯০৯ জন শিক্ষক নিয়োগ পেয়ে এমপিওভুক্তির জন্য অনলাইনে আবেদন করেছিলেন।

২৪ সেপ্টেম্বর, সোমবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরে অনুষ্ঠিত এমপিও কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভায় অধিদফতরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক মোহাম্মদ শামছুল হুদা সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠকে উপস্থিত একজন পরিচালক জানান, ৯১৩ শিক্ষককে এমপিও দেওয়ার কথা থাকলেও চার শিক্ষককের বিরুদ্ধে সনদ জালিয়াতির অভিযোগ থাকায় তাদের বাদ দিয়ে ৯০৯ শিক্ষককে এমপিও দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

স্কুল ও কলেজের ৯০৯ জন শিক্ষক-কর্মচারীর মধ্যে বরিশাল অঞ্চলে ৪৭ জন, চট্টগ্রাম ৪২ জন, কুমিল্লা ৬২ জন, ঢাকা ১৪৩ জন, খুলনা ৮৬ জন, ময়মনসিংহ ১৪২ জন, রাজশাহী ৭৭ জন, রংপুর ২৩৭ জন এবং সিলেট অঞ্চলে ১০ জনকে এমপিওভুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ ছাড়া অফলাইনে আবেদন করা ৬৭ জনকে এমপিওভুক্ত করার সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় অধিদফতরের দুজন পরিচালক, মাদারাসা অধিদফতরের একজন পরিচালক, শিক্ষা অধিদফতরের নয় আঞ্চলিক উপ-পরিচালক ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তিনজন প্রতিনিধিসহ প্রায় ৩০ জন কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। তবে অসুস্থতার কারণে এবারের সভায় অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক মো. মাহাবুবুর রহমান উপস্থিত থাকতে পারেননি।




শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওর চূড়ান্ত ফয়সালা আগামী মাসে: শিক্ষামন্ত্রী

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির বিষয়টি আগামী মাসের মধ্যে চূড়ান্ত ফয়সালা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর মত নিয়ে আগামী মাসের মধ্যে এই বিষয়টির ফয়সালা হবে।’

রবিবার জাতীয় সংসদে প্রশ্ন-উত্তরে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আ খ ম জাহাঙ্গির হোসাইনের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি এই তথ্য জানান।

‘আগামী ডিসেম্বরের আগে কয়টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হবে’—আ খ ম জাহাঙ্গির হোসাইনের এমন প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘২০১০ সালের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আর এমপিওভুক্তি করা সম্ভব হয়নি। এমপিওভুক্তির বিষয়টি অতি আলোচিত। আমরা ২০১০ সালে ২৪০০ স্কুল, কলেজ, মাদরাসা এমপিওভুক্তি করেছিলাম। অর্থমন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ছাড়া করতে পারি না।আমরা অর্থ ছাড়ের জন্য আরও আগে থেকেই অর্থমন্ত্রীকে অনুরোধ করে যাচ্ছি। তবে ইতোমধ্যে অর্থমন্ত্রী রাজি হয়েছেন এবং কিছু টাকা বরাদ্দও দিয়েছেন।’

শিক্ষামন্ত্রী নাহিদ বলেন, ‘এমপিওভুক্তির জন্য আমরা একটি ক্রাইটেরিয়া নির্ধারণ করে ইতোমধ্যে প্রজ্ঞাপন দিয়েছি। আগ্রহীরা অনলাইনে আবেদন করবেন। বাছাই করা হবে। কিসের ভিত্তিতে দেবো, প্রধানমন্ত্রীর মত নিয়ে আগামী মাসের মধ্যে ফয়সালা হবে। তবে কী পরিমাণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিও দেওয়া হবে, সেটা বলতে পারছি না। এখানে অনেক বিষয় থাকে। আমরা চেষ্টা করছি বাড়ানোর জন্য। আগামী মাসের মধ্যে ফয়সালা হয়ে যাবে।’

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ররিবার বৈঠকের শুরুতে প্রশ্নউত্তর অনুষ্ঠিত হয়




বাদ পড়া ৪৯৪ জন শিক্ষক নতুন করে এমপিওভুক্ত হওয়ার সুযোগ

স্কুল ও কলেজের তথ্যপ্রযুক্তি, বিজ্ঞান শিক্ষক, চারুকলা এবং শ্রেণি শাখার বাদ পড়া ৪৯৪ জন শিক্ষক নতুন করে এমপিওভুক্ত হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। দু-এক দিনের মধ্যেই এমপিওভুক্তির নির্দেশনা দিয়ে আদেশ জারি করতে পারে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) তালিকা অনুযায়ী, গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর এসব শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির সুযোগ আসে। ওই সময় সাত হাজার ১৪৬ শিক্ষককে এমপিওভুক্ত করে সরকার। কিন্তু বাদ পড়েন এসব শিক্ষকরা। অবশেষে ছয় বছর পর আবার তারা এমপিওভুক্তির সুযোগ পাচ্ছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের যুগ্মসচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক) সালমা জাহান বলেন, ‘গত ১ আগস্টের রেজুলেশন অনুযায়ী, বাদ পড়া শিক্ষক ও শ্রেণি শাখার অতিরিক্ত শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির আদেশ জারি করতে সব কিছু প্রস্তুত করা হয়েছে। সচিব দেখার পর অনুমতি দিলে আদেশ জারি করা হবে।’

এর আগে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক) জাবেদ আহমেদ জানিয়েছিলেন, মাউশির তালিকার বাইরে যদি কেউ বাদ পড়েন তারাও এমপিওভুক্তির সুযোগ পাবেন। মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখা থেকে জানা গেছে, বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আদেশ জারির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। সব কিছু প্রস্তুত করা হয়েছে। সচিব দেখার পর সংশ্লিষ্ট শাখা থেকে যেকোনো সময় আদেশ জারি করা হতে পারে।




মাদরাসা শিক্ষকদের আগষ্ট মাসের বেতন ছাড়

মাদরাসা শিক্ষকদের আগস্ট মাসের এমপিওর (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) চেক বুধবার ( ২৯ আগস্ট ) ছাড় হয়েছে।

শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতনের আটটি চেক নির্ধারিত অনুদান বণ্টনকারী চারটি ব্যাংকের শাখায় পাঠানো হয়েছে।

শিক্ষক-কর্মচারীরা ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নিজ নিজ ব্যাংক একাউন্ট থেকে বেতন উত্তোলন করতে পারবেন।

 স্মারক নং – ৫৭.২৫.০০০০.০০২.০৮.০০৪.১৭-১৬৪




শিক্ষকদের আগস্ট মাসের চেক ব্যাংকে

স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদের আগস্ট মাসের এমপিওর (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) চেক সোমবার ( ২৭ আগস্ট ) ছাড় হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতনের আটটি চেক নির্ধারিত অনুদান বণ্টনকারী চারটি ব্যাংকের শাখায় পাঠানো হয়েছে।

শিক্ষক-কর্মচারীরা  ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নিজ নিজ ব্যাংক একাউন্ট থেকে বেতন উত্তোলন করতে পারবেন।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম সিদ্দিকি এতথ্য নিশ্চিত করেছেন। স্মারক নং – ৩৭.০২.০০০০.১০২.৩৭.০০৩.২০১৮/৪৪০৪/৪,  তারিখ:  ২৬/০৮/২০১৮




একাডেমিক স্বীকৃতি ও ইআইআইএন ছাড়া এমপিওভুক্ত হতে পারবে না

একাডেমিক স্বীকৃতি ও এডুকেশনাল ইনস্টিটিউশন আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (ইআইআইএন) ছাড়া এমপিওভুক্ত হতে পারবে না শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তাই একাডেমিক স্বীকৃতির জন্য যেসব আবেদন কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে জমা আছে তা দ্রুত নিষ্পত্তি করতে বলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ। একই সঙ্গে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানসমূহকে ইআইআইএন নম্বর পাওয়ার জন্য বোর্ডে আবেদন করার নির্দেশ দিয়ে কারিগরি বোর্ডকে অফিস আদেশ জারি করতে বলা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য অনলাইনে আবেদন নেয়া শুরু হচ্ছে রোববার (২৬ আগস্ট)। ১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অনলাইনে এমপিওভুক্তির আবেদন করা যাবে। প্রতিষ্ঠানের যোগ্যতা অনুসারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ক্রমিক সাজাবে সফটওয়্যার। এরপর কতগুলো প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সে তালিকা করা হবে।




নিম্ন মাধ্যমিকের আইসিটি শিক্ষরা এমপি ও ভুক্ত হচ্ছেন –

নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি) পদটি প্যাটার্নভুক্ত হওয়ায় এ পদে নিয়োগ এবং এমপিও প্রদানের বিষয়ে আদেশ জারি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সম্প্রতি জারি করা আদেশে বলা হয়, এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সহকারী শিক্ষক (তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি) পদে ইতোমধ্যে বিধি মোতাবেক নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের এমপিও প্রদানের বিষয়ে পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া যাবে।

নীতিমালা জারি হওয়ার পর বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) মাধ্যমে সহকারী শিক্ষকের (তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি) শূন্য পদে নিয়োগের জন্য পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া যাবে বলেও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আদেশে বলা হয়েছে।




বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল,কলেজ) শিক্ষক-কর্মচারীদের জুলাই/২০১৮ মাসের বেতন -ভাতার সরকারি অংশের টাকার চেক হস্তান্তর

স্মারক নং – ৩৭.০২.০০০০.১০২.৩৭.০০৩.২০১৮/৩৭৪৬/৪

স্কুল ও কলেজ শিক্ষকদের চলতি বছরের জুলাই মাসের এমপিওর (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) চেক বুধবার ( ১ আগস্ট ) ছাড় হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন স্কুল ও কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতনের আটটি চেক নির্ধারিত অনুদান বণ্টনকারী চারটি ব্যাংকের শাখায় পাঠানো হয়েছে।

বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন –

শিক্ষক-কর্মচারীরা ৮ আগস্ট পর্যন্ত নিজ নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে বেতন-ভাতার সরকারি অংশ উত্তোলন করতে পারবেন।




জুলাই মাসের এমপিওর চেক ছাড় কারিগরি শিক্ষকদের

স্মারক নং- ৫৭.০৩.০০০০.০৯১.২০.০০৫.১৮-৬৫৬,৬৫৭,৬৫৮,৬৫৯

কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন শিক্ষক-কর্মচারীদের জুলাই-২০১৮ মাসের বেতন-ভাতার সরকারি অংশের (এমপিও) চেক মঙ্গলবার (৩১ জুলাই) ছাড় হয়েছে।

শিক্ষকরা নিজ নিজ এ্যাকাউন্ট থেকে ৯ আগস্ট পর্যন্ত বেতন-ভাতার সরকারি অংশের টাকা তুলতে পারবেন।




জুন মাসের এমপিওর চেক ছাড়ে দেরি হতে পারে

জুন মাসের এমপিওর চেক ছাড় করতে আরও কয়েকদিন দেরি হতে পারে। এর ফলে এমপিওভুক্ত প্রায় পাঁচ লাখ স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসা শিক্ষক-কর্মচারী দেরিতে বেতন-ভাতার টাকা তুলতে পারবেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক সূত্র এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের একজন পরিচালক বলেন, জুন মাসের এমপিওর প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবছরই জুন মাসের এমপিওর চেক ছাড় করতে কিছুটা দেরি হয়। এবারও কিছুটা দেরি হতে পারে।

তবে, মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক  মো: বিল্লাল হোসেন ব্যক্তিগত কাজে লণ্ডন সফরে থাকায় মাদ্রাসা শিক্ষকদের এমপিওর প্রস্তাব আজ সোমবারও মন্ত্রণালয়ের পাঠানো হয়নি।

এদিকে সারাদেশের এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা তাকিয়ে রয়েছেন কবে চেক ছাড় হবে। কবে বেতন তুলতে পারবেন।




প্রশ্ন সংসদে-শিক্ষকরা রাস্তায় কেন?

বাজেটে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তিতে বরাদ্দ না থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সংসদ সদস্যরা, বলেছেন শিক্ষকরা রাস্তায় কেন। বৃহস্পতিবার (২১ জুন) সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে দ্রুততার সঙ্গে এমপিও দেয়ার জোর দাবি জানান সংসদ সদস্যরা।

শিক্ষকরা রাস্তায় কেন এ প্রশ্ন রেখে জাতীয় পাটির সদস্য নুরুল ইসলাম তালুকদার বলেন, শিক্ষাখাতে বরাদ্দ খুবই কম। সরকার শিক্ষা বান্ধব, শিক্ষার জন্য তারা অনেক কিছুই করেছে। কিন্তু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করছে না। এমপিওভুক্তি সবার দাবি। শিক্ষামন্ত্রী শুধু নীতিমালার কথা বলে পাঁচ বছর কাটিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু এমপিওভুক্তি করেননি।

                                   জাতীয় পাটির সদস্য নুরুল ইসলাম তালুকদার

 

তিনি আরও বলেন, বলা হয় ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ। কিন্তু ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ নেই। ইফতারের সময়, তারাবির সময় বিদ্যুৎ নেই। বড় বড় কথা বলে লাভ হবে না। বিদ্যুতে স্বয়ংসম্পূর্ণতা আসবে না।

জাতীয় পর্টির (জেপি) সংসদ সদস্য রুহুল আমিন বলেন, ২০১১ সালের পর থেকে নতুনভাবে এমপিওভুক্তি বন্ধ আছে। এরমধ্যে অন্তত ২০ বার শিক্ষকেরা আন্দোলন করেছেন এবং সরকারের বিভিন্ন পর্যায় থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে। কিন্তু বাজেট বরাদ্দের অভাবে এমপিওভুক্তি হয়নি। তিনি বাজেটে এমপিওভুক্তির বরাদ্দ দেয়ার অনুরোধ জানান।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান বলেন, শিক্ষকরা এমপিওভুক্তির দাবিতে আন্দোলন করছেন। তাই দ্রুততম সময়ের মধ্যে এমপিওভুক্তি দেয়ার কথা বলেন তিনি।