‘বই খুলে পরীক্ষা নেয়ার কথা ভাবা হচ্ছে’

‘প্রশ্নপত্র ফাঁসের ভয়াবহতায় আগামীতে এসএসসির মতো পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্ন না ছাপিয়ে বই খুলে পরীক্ষা নেয়ার কথা চিন্তা-ভাবনা করছে সরকার’।

সোমবার সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষাসচিব সোহরাব হোসেন একথা জানান।

এর আগে তিনি বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে মোবাইল ফোনে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।পরীক্ষা সংশ্লিষ্টদের এ ব্যাপারে নির্দেশ দিয়ে দেয়া হয়েছে।

জানা গেছে, পরীক্ষা কেন্দ্রের ভেতরে এবং কেন্দ্রের ২০০ মিটারের মধ্যে মোবাইল ফোনসহ পাওয়া গেলেই গ্রেপ্তার করা হবে। পরীক্ষা সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানোর অংশ হিসেবে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়। এদিকে, পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে কোনো পরীক্ষার্থী যদি কেন্দ্রে প্রবেশ না করে তবে তাকে আর কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানে গত রবিবার এক আদেশে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (মাউশি), সব বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক (ডিসি) এবং শিক্ষা বোর্ডগুলোর চেয়ারম্যানদের এই নির্দেশ পাঠানো হয়েছে।

এছাড়াও প্রশ্ন ফাঁসে ব্যবহৃত ৩০০ মোবাইল ফোন নম্বর চিহ্নিত করে সেগুলো বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। এমন কি এসব মোবাইল নম্বরের মালিকদের গ্রেফতার করতে ইতোমধ্যে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে। প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ সংক্রান্ত তথ্য যাচাই-বাছাই কমিটি সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ সংক্রান্ত তথ্য যাচাই-বাছাই কমিটির প্রধান, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর গতকাল রবিবার সচিবালয়ে এই কমিটির প্রথম সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, এ পর্যন্ত ৩০০ টেলিফোন নম্বর চিহ্নিত করে ব্লক করে দেয়া হয়েছে। এই নম্বরধারীদের অধিকাংশ শিক্ষার্থী। তবে এর মধ্যে অভিভাবকরাও রয়েছেন।

তিনি বলেন, মিডিয়ায় যে সমস্ত তথ্য-প্রমাণ এসেছে সেগুলো দেখে পর্যালোচনা করবে কমিটি। এছাড়া আরো পর্যালোচনা করে দেখা হবে যে, আসলেই ফাঁস হয়েছে কি না, কতক্ষণ আগে ফাঁস হয়েছে, তার প্রভাবটা কী, কতজন ছাত্র-ছাত্রী এটির মধ্য দিয়ে প্রভাবিত হয়েছে, পরীক্ষা বাতিল করা হবে কি না, বাতিল করা হলে কতজন ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

তিনি বলেন, দেখা যাচ্ছে যে, প্রশ্ন পেয়েছে ৫/১০ মিনিট আগে। ওই প্রশ্ন পেয়ে তো বেশি প্রভাবের সুযোগ নাই। আবার দেখা গেছে বেশ আগে ফাঁস হলেও ৫ বা ১০ হাজার ছেলে-মেয়ে পেয়েছে। কিন্তু পরীক্ষা দিয়েছে ২০ লাখ। এমন বিষয়গুলো হিসাব-নিকাশ করে প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে।

3 thoughts on “‘বই খুলে পরীক্ষা নেয়ার কথা ভাবা হচ্ছে’

  • February 14, 2018 at 1:06 am
    Permalink

    খুব ভালো একটি আর্টিকেল লিখেছেন, আমি সত্যিই এই পোস্টটি উপভোগ করেছি। এই কথা গুলো নতুন পরিক্ষারথিদের সাহায্য করবে এবং একটি বিস্তারিত পোস্টের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ ! আপনি খুব সুন্দর করে বুঝিয়ে লিখেছেন। ধন্যবাদ

    Reply
  • February 19, 2018 at 4:32 am
    Permalink

    I’m still learning from you, while I’m making my way to the top as well. I absolutely love reading all that is posted on your site.Keep the stories coming. I enjoyed it!
    porno de ni nas 3gp

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*