প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে কঠোর অবস্থান নিয়েছি:শিক্ষামন্ত্রী

প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে আমরা খুবই কঠোর অবস্থান নিয়েছি। তারপরও যদি কেউ প্রশ্নপত্র ফাঁস বা ফাঁসের চেষ্টা করে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একই সঙ্গে এরপরেও যদি কোনো পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে যায় সেই পরীক্ষা বাতিল করা হবে। বৃহস্পতিবার (০১ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজধানীর ধানমণ্ডি গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি হাই স্কুল কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সাংবাদিকদের একথা বলেন। তিনি বলেন, প্রশ্নফাঁস বা ফাঁসের চেষ্টা করা হলেও অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে আমরা ইতোমধ্যে অনেক ব্যবস্থা নিয়েছি। এগুলোর সব এখন বলতে চাচ্ছি না। গোয়েন্দা বাহিনী এ ব্যাপারে সক্রিয় রয়েছে। মূল কথা হচ্ছে, প্রশ্নপত্র ফাঁসের চেষ্টা করা হলে কাউকেই রেহাই দেওয়া হবে না। মন্ত্রী বলেন, সবার কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি, শিক্ষার্থীরা আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ। তাদের জীবন নষ্ট হলে জাতির ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যাবে। তাই এমন কিছু করবেন না যাতে করে পরীক্ষা নিতে সমস্যা হয়। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে যদি দেশে কোনো অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়, তবুও সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা চলবে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী। প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে নজিরবিহীন কড়া পরিবেশের মধ্যে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় শিক্ষার্থীরা এবারই প্রথম পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগেই কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে নিজ আসনে বসেছে। প্রথম দিন বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথমপত্র, সহজ বাংলা প্রথমপত্র এবং বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দাখিলে কুরআন মাজিদ ও তাজবিদ বিষয়ের পরীক্ষা চলছে। এবারের এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ২০ লাখ ৩১ হাজার ৮৮৯ জন। এর মধ্যে ১০ লাখ ২৩ হাজার ২১২ জন ছাত্র ও ১০ লাখ ৮ হাজার ৬৮৭ জন ছাত্রী রয়েছে। ৩ হাজার ৪১২টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*