২০১৮ সালে ৮ হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পাচ্ছে নতুন ভবন

কার্যক্রমে গতি আনতে চাহিদা অনুযায়ী প্রতি বছরই নতুন নতুন ভবন নির্মাণ করছে সরকার। এরইমধ্যে গত ৮ বছরে অর্থাৎ ২০০৯ সাল থেকে ২০১৭ সালের জুন পর্যন্ত ১০ হাজার ১১টি হাইস্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। আরও দুই হাজার ৪৮৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভবন নির্মাণ কাজ চলমান।

এর মধ্যে আগামী বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে আরো ৮ হাজার ২৫০টি ভবন নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবনা শিগগিরই জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (একনেক) বৈঠকে অনুমোদন পেতে যাচ্ছে।

নতুন ভবন নির্মাণ প্রসঙ্গে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের (ইইডি) প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান মো. হানজালা বাংলানিউজকে বলেন, ‘আমাদের একটি প্রকল্প প্রি-একনেক বৈঠকে গেছে, ডিসেম্বরের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিলে জানুয়ারি থেকে নতুন ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হবে। প্রতিটি নতুন ভবন হবে অত্যাধুনিক। সেখানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুমের ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়া প্রজেক্টর ব্যবহারেরও সুযোগ থাকছে’।

প্রতিটি সংসদ অধিবেশনে এমপিদের বেশিরভাগই শিক্ষামন্ত্রীর কাছে নতুন ভবনের চাহিদা উল্লেখ করেন। শেষ হওয়া ১৮তম অধিবেশনেও একাধিক সংসদ সদস্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ভবন চেয়ে শিক্ষামন্ত্রীকে অনুরোধ জানান।

ইইডি’র প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান হানজালা দায়িত্ব নেওয়ার আগে নতুন ভবন নির্মাণের কাজ এগোতো কচ্ছপ গতিতে। একটি পরিসংখ্যানে বোঝা যায়, ২০০১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভবন নির্মাণ হয়েছিল মাত্র চার হাজার ৪৩৭টি।

বর্তমানে দেশে সরকারি-বেসরকারি হাইস্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা রয়েছে মোট ৩৩ হাজার ২১টি। এর মধ্যে ২০০৯ সাল থেকে গত জুন পর্যন্ত যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভবন নির্মাণ করা হয়েছে তার মধ্যে সাত হাজার ৮৫১টি হাইস্কুল, ৯৭৭টি কলেজ ও এক হাজার ১৮৩টি মাদ্রাসা।

নতুন ভবন নির্মাণের ব্যাপারে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সংসদ অধিবেশনে জানান, ২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠনের পর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর সারাদেশে অবকাঠামো নির্মাণে ব্যাপক কার্যক্রম গ্রহণ করে। এ উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত আছে এবং নতুন নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। গত সাড়ে আট বছরে শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় আড়াইগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে জানিয়ে  মন্ত্রী বলেন, ফলে নতুন অবকাঠামো নির্মাণের প্রয়োজনীয়তাও অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, মাধ্যমিক পর্যায়ে প্রথম প্রকল্পের আওতায় সাত হাজার ৮৫১টি একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হয়েছে এবং আরো এক হাজার ৫১টি ভবনের নির্মাণ কাজ চলছে। চার হাজার ৬৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩২৩টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে উন্নয়ন প্রকল্প শুরু হবে। তিন হাজার ২২৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

এসব ভবন নির্মাণ কাজ শেষ হলে ক্লাসরুমের স্বল্পতায় আর কোনো প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হবে না। অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন এসব ভবন নির্মাণ শিক্ষা কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*