জেনে নিন লেবুর চেয়ে বেশি ভিটামিন রয়েছে লেবুর খোসায়।

জেনে নিন লেবুর চেয়ে বেশি ভিটামিন রয়েছে লেবুর খোসায়।

লেবু একটি সার্বজনীন ফল। লেবুর এতোই গুণ যে এটি রঙ্গে, রসে, স্বাদে আর ঘ্রাণে অতুলনীয়। লেবুর ফ্লেভার দিয়ে বানানো হয় হাজারো রকমের খাবার আবার খাবারের সাথে সরাসরি তো সবাই আমরা খাই তাছাড়া এর সরবত তো আরো জনপ্রিয়। এতোসব গুণ থাকা সত্তেও নাকি একে ছাড়িয়ে যায় স্বয়ং এর খোসা।

লেবুর খোসা

সাধারণত লেবু চিবিয়ে আমরা এর খোসা ফেলে দেই, তবে কিছু মানুষ শখের বশেই এটা খায়। যদি আপনি এতদিন লেবুর খোসা ফেলে দিয়ে থাকেন তবে সত্যি আপনার আপসোস হবে আর যারা জেনে বা না জেনে খেয়েছিলেন তারা খুবি আনন্দিত হবেন। বিশেষজ্ঞদের মতে লেবুর খোসায় লেবুর রসের তুলনায় বেশি ভিটামিন, পুষ্টি ও স্বাস্থ্যের জন্যে উপকারী উপাদান রয়েছে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী লেবুর রসের চেয়ে এর খোসায় প্রায় ৫ গুণ বেশি ভিটামিন রয়েছে। তবে প্রাকৃতিক এবং তাজা লেবুর খোসা আপনার জন্যে বেশি উপকারী, রাসায়নিক ঔষধ কিংবা কীটনাশক প্রয়োগকৃত লেবুর খোসা না খাওয়াই ভালো।

লেবুর খোসা

লেবুর খোসার উপকারিতাঃ

  • রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। (উচ্চ রক্তচাপ এর জন্যে বিশেষভাবে কার্যকরী)
  • ক্যান্সার এর সাথে যুদ্ধ করে।
  • হাড়ের শক্তি বজায় রাখে।
  • মুখ ও দাতের সুরক্ষা দেয়।
  • ওজন কমাতে সাহায্য করে।
  • পাচনতন্ত্রে প্যারাসাইট এবং আন্ত্রিক কৃমির অতিবৃদ্ধি প্রতিরোধ করে।
  • ছত্রাক ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা দেয়।
  • মূত্রনালির ইনফেকশন ও টিউমার এর ক্ষেত্রে উপকারী।
  • লেবুর খোসায় পলিফেনল ফ্ল্যাভোনয়েড থাকার কারনে এটি কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে।

লেবুর খোসা

লেবুর খোসার প্রয়োগ ও ব্যবহারঃ

পোকামাকড় থেকে সুরক্ষাঃ ঘরের বিভিন্ন কোনায় যেখানে ছোট ছোট ছিদ্র কিংবা ফাটা আছে যেখানে পিপড়া ও পোকামাকড় ঢুকতে পারে বা এদের বাসস্থান আছে ঐ জায়গায় লেবুর খোসা ব্যবহার করলে পিপড়া ও অন্যান্য পোকামাকড় থেকে রক্ষা পাবেন। বেশীরভাগ পোকামাকড় লেবুতে থাকা এসিড সহ্য করতে পারেনা।

ত্বকের সুরক্ষায়ঃ মুখের ত্বকের সুরক্ষায় লেবুর খোসা ভালো করে ত্বকের মধ্যে ঘষে নিন এটা টনিক হিসেবে কাজ করবে। তবে অবশ্যই চোখে লাগাবেন না।

ঝকঝকে নখের জন্যেঃ প্রতিদিন ঘুমোতে যাওয়ার পূর্বে নখে লেবুর খোসা দিয়ে ঘষলে আপনার নখ সাদা ঝকঝকে আর শক্তিশালী হবে।

সিঙ্ক বা বেসিন পরিষ্কারেঃ যে কোন স্টেইনলেস সিঙ্ক, সসপেন ও রান্নার সামগ্রী যেখানে তৈল লেগে থাকে সেখানে লেবুর খোসা ব্যবহার করলে সহঝেই পরিষ্কার হয়ে যাবে।

রেফ্রিজারেটরকে তাজা রাখতেঃ রেফ্রিজারেটরে লেবুর খোসা রাখলে তা দুর্গন্ধ শুষে নেয় আর সুঘ্রাণ ছড়ায়। এটা খুব ভালো কাজ করে কেননা লেবুর খোসার অনেক বেশি শুষে নেয়ার ক্ষমতা রয়েছে।

লেবুর খোসা

কিভাবে খাবেন লেবুর খোসাঃ

  • তিন থেকে চারটি লেবু কিছুক্ষনের জন্যে ফ্রিজে রেখে দিন এরপর বের করে সালাদ এর মতো কুচিকুচি করে নিন। যে কোন সালাদের সাথে অথবা সরাসরি খাবারের সাথে খেতে পারেন।
  • আপনি চাইলে শসা কিংবা গাজরের মতো সরাসরি কামড়িয়ে খেতে পারেন খাবারের সাথে।
  • লেবুর খোসা কুচি করে যে কোন খাবার কিংবা শরবতে ব্যবহার করলে আলাদা সুঘ্রাণ ছড়ায়।

আপনি চাইলে নিজের মতো করে যেকোনো রেসিপি বানিয়ে নি্তে পারেন। তবে আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যে আপনি খাচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*